জলাবদ্ধতা প্রকল্প বাস্তবায়নে সর্বোচ্চ জনবল ও অভিজ্ঞতা সহযোগিতা প্রদান করবো-সিটি মেয়র।

জলাবদ্ধতা প্রকল্প বাস্তবায়নে সর্বোচ্চ জনবল ও অভিজ্ঞতা সহযোগিতা প্রদান করবো-সিটি মেয়র।

42
SHARE

নিজস্ব প্রতিনিধি : হাসান মুরাদ:চট্টগ্রাম নগরের জলাবদ্ধতা নিরসনকল্পে খাল পুনঃখনন,সম্প্রসারণ, সংস্কার ও উন্নয়ন প্রকল্প বাস্তবায়নে চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের পক্ষ থেকে সর্বোচ্চ জনবল ও অভিজ্ঞতা সহযোগিতা প্রদানের প্রত্যয় ব্যক্ত করেছেন সিটি মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীন।
আজ হোটেল রেডিসন ব্লু-তে প্রকল্প বাস্তবায়নে চট্টগ্রাম উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ ও বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর মধ্যে এক সমঝোতা স্মারক চুক্তি স্বাক্ষর সম্পাদিত হয়েছে।অনু্ষ্ঠানে সিটি মেয়র একথা বলেন।
তিনি বলেন,এ প্রকল্প বাস্তবায়িত হলে চট্টগ্রাম বাসীর দীর্ঘদিনের জল ভোগান্তি ও দুর্ভোগ লাঘব হবে।তবে প্রকল্প বাস্তবায়নের জন্য আমাদের সবাইকে ধৈর্য ধারণ করতে হবে।আবার আসন্ন বর্ষা মৌসুমে সৃষ্ট সমস্যার জন্য আমরা সবাই যদি ব্যতিক্রম কথা বলতে থাকি তাহলে কিন্তু হচ্ছে না।বলা সহজ হলেও করা কিন্তু কঠিন।
এই প্রকল্প বাস্তবায়ন সময়ের ব্যাপার।আমি চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের প্রকৌশল বিভাগ,পরিচ্ছন্ন বিভাগসহ প্রকল্প বাস্তবায়নে যে সকল বিভাগের সহযোগিতার প্রয়োজন হয় তাতে শতভাগ সহযোগিতা করবো। এটি আমাদের নৈতিক দায়িত্ব ও কর্তব্য।
তিনি বলেন, প্রয়োজনে খালের অবৈধ দখল উচ্ছেদ অভিযানে আমি সশরীরে উপস্থিত থাকব। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা চট্টগ্রাম উন্নয়নের দায়িত্ব নিজ হাতে নিয়েছেন। তিনি তার কথা অক্ষরে অক্ষরে পালন করেছেন।
তবে জনসচেতনতার বিষয়টি উল্লেখ করে তিনি বলেন, আমাদের মাইন্ড সেট পরিবর্তন করতে হবে।খালে,নালায় ময়লা ফেলার প্রবণতা ত্যাগ করতে হবে।নইলে প্রকল্প বাস্তবায়ন কখনো সফল হবে না।এ ব্যাপারে আমাদের মিডিয়া ভাইদেরকেও জনসচেতনতা সৃষ্টিতে ভূমিকা রাখতে হবে।
অনুষ্ঠানে সিডিএ চেয়ারম্যান আবদুচ ছালাম বলেন, খাল নালা সংস্কার,উন্নয়ন,সম্প্রসারণ যা বলি সব সিটি কর্পোরেশনের কাজ।এসব কাজ যুগ যুগ ধরে চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশন করে আসছে। আমি এই প্রকল্প বাস্তবায়নে চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের পক্ষ থেকে কারিগরি এবং লজিস্টিক সহযোগিতা আশা রাাখি। এ ব্যাপারে স্ব স্ব ওয়ার্ড কাউন্সিরবৃন্দকে তিনি সহায়তা করার আহবান জানান।
তিনি মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর উপহার জলাবদ্ধতা নিরসন প্রকল্প বাস্তবায়নে বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর দায়িত্ব গ্রহণের আন্তরিক কৃতজ্ঞতা জ্ঞাপন করেছেন।
চুক্তি স্বাক্ষর পত্রে চট্টগ্রাম উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের পক্ষ থেকে তত্ত্বাবধায়ক প্রকৌশলী হাসান বিন শামস এবং বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর পক্ষ থেকে ৩৪ ইঞ্জিনিয়ারিং কন্সট্রাকশন ব্রিগেডের উপ-মহাপরিচালক লেফটেনেন্ট কর্নেল শাহরিয়ার আহমেদ স্বাক্ষর করেন।
অনুষ্ঠানে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ উপদেষ্টামন্ডলীর সদস্য ড.অনুপম সেন, সাংগঠনিক সম্পাদক ব্যারিস্টার মহীবুল হাসান চৌধুরী নওফেল,উপ-প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক আমিনুল ইসলাম,উত্তর জেলা আওয়ামীলীগ সভাপতি নুরুল আলম চৌধুরী,জেলা পরিষদ প্রশাসক এম এ সালাম,দক্ষিণ জেলা আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক মফিজুর রহমান চৌধুরী বক্তব্য রাখেন।