এখনো হদিস মেলেনি অপহৃত ২ নেত্রীর, রাঙামাটিতে কাল নৌ ও সড়কপথ অবরোধ।

এখনো হদিস মেলেনি অপহৃত ২ নেত্রীর, রাঙামাটিতে কাল নৌ ও সড়কপথ অবরোধ।

78
SHARE

নিজস্ব প্রতিনিধি :মোঃআহসান উল্লাহঃ
অপহৃত ইউনাইটেড পিপলস ডেমোক্রেটিক ফ্রন্ট (ইউপিডিএফ) সমর্থীত সংগঠন হিল উইমেন্স ফেডারেশনের দুই নেত্রী
তিন দিনেও হদিস মেলেনি রাঙামাটির নানিয়ারচরে অস্ত্রের মুখে অপহৃত ইউনাইটেড পিপলস ডেমোক্রেটিক ফ্রন্ট (ইউপিডিএফ) সমর্থীত সংগঠন হিল উইমেন্স ফেডারেশনের দুই নেত্রীর। এ ঘটনার প্রতিবাদে আগামীকাল বুধবার রাঙামাটি ও খাগড়াছড়ি জেলায় সকাল-সন্ধ্যা সড়ক অবরোধ কর্মসূচি ঘোষণা দিয়েছে ইউপিডিএফ সমর্থিত হিল উইমেন্স ফেডারেশন, গণতান্ত্রিক যুব ফোরাম ও পাহাড়ি ছাত্র পরিষদের নেতাকর্মীরা।
মঙ্গলবার হিল উইমেন্স ফেডারেশন কেন্দ্রীয় কমিটির সাংগঠনিক সম্পাদক দ্বিতীয়া চাকমা স্বাক্ষরিত্ব এক বিবৃতিতে জানানো হয়, পার্বত্য চট্টগ্রামে নিয়োজিত সন্ত্রাসী, দাগি ও খুনী বিভিন্ন মামলার পলাতক আসামি তপন জ্যোতি চাকমা ওরফে বর্মা ও তার সহযোগিদের গ্রেফতার ও অপহৃত এইচডব্লিউএফের দুই নেত্রী মন্টি চাকমা ও দয়াসোনা চাকমাকে উদ্ধারের দাবিতে এ কর্মসুচি পালন করা হবে।

হিল উইমেন্স ফেডারেশনের সূত্রে জানা গেছে, ইউপিডিএফের দু’গ্রুপের মধ্যে বন্দুকযুদ্ধের ঘটনার দিন উইমেন্স ফেডারেশনের দুই নেত্রীকে অস্ত্রের মুখে তুলে নিয়ে যায় তাদের প্রতিপক্ষ গ্রুপের (বর্মা গ্রুপ) সদস্যরা। এরপর থেকে এখনো নিখোঁজ সংগঠনটির সাধারণ সম্পাদক মন্টি চাকমা ও কেন্দ্রীয় সদস্য দয়াসোনা চাকমা। এ নিয়ে এলাকায় চরম উত্তেজনা বিরাজ করছে। এ ঘটনার প্রতিবাদে তিন দিন ধরে রাঙামাটির কুতুকছড়ি ও খাগড়াছড়িতে প্রতিবাদ সমাবেশ ও বিক্ষোভ কর্মসূচি পালন করে হিল উইমেন্স ফেডারেশন, গণতান্ত্রিক যুব ফোরাম ও পাহাড়ি ছাত্র পরিষদের নেতাকর্মীরা।

অন্যদিকে ইউপিডিএফের মূল সংগঠনটি গণ্যমাধ্যমে দেওয়া বিভিন্ন বিবৃতিতে মন্টি ও দয়াসোনা অপহরণের কথা স্বীকার করলেও এ ব্যাপারে থানায় এখনো কেউ কোন লিখিত অভিযোগ করেনি বলে জানিয়েছে পুলিশ।

রাঙামাটি কতোয়ালী থানার কর্মকর্তা (ওসি) সত্যজিৎ বড়ুয়া জানান, নানিয়ারচরে ইউনাইটেডপিপল্স ডেমোক্রেটিকফ্রন্ট (ইউপিডিএফ) এর দু’গ্রুপের মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনার দিন হিল উইমেন্স ফেডারেশনের দুই নারী নেত্রীকে অস্ত্রের মুখে তুলে নিয়ে গেছে বলে শুনেছি। কিন্তু এখনো পর্যন্ত তাদের অপহরণের বিষয়ে কোন লিখিত অভিযোগ করেনি কেউ। অপহৃতাদের অভিভাবকদের লিখিত অভিযোগ দিতে বলা হয়েছে।

তবে কেউ অভিযোগ না দিলেও আইন অনুযায়ী পুলিশ ব্যবস্থা নেবে। অপহৃতাদের সন্ধানে পুলিশি অভিযান অব্যাহত আছে।
এব্যাপারে হিল উইমেন্স ফেডারেশনের সভাপতি নিরুপা চাকমা বলেন, রাঙামাটির কুদুকছড়িতে তপন জ্যোতি চাকমা ওরফে বর্মার নেতৃত্বাধীন ইউপিডিএফের বিদ্রোহী গ্রুপকে (নব্য মুখোশ বাহিনী) তিন সংগঠনের নেতা-কর্মীদের উপর হামলা, হিল উইমেন্স ফেডারেশনের দুই নেত্রীকে অপহরণ এবং গণতান্ত্রিক যুব ফোরামের কেন্দ্রীয় নেতাকে গুলি করে জখম করার মধ্য দিয়ে জঘন্য কাপুরুষোচিত ঘটনা সংঘটিত করেছে। এ জন্য জনগণের কাঠগড়ায় তাদের অবশ্যই দাঁড়াতে হবে। তিনি মন্টি চাকমা ও দয়া সোনা চাকমাকে সুস্থ ও অক্ষত অবস্থায় উদ্ধারের দাবি জানান।

হিল উইমেন্স ফেডারেশনের কেন্দ্রীয় কমিটির সাংগঠনিক সম্পাদক দ্বিতীয়া চাকমা আরও জানান, অবরোধ কর্মসূচি সফল করতে খাগড়াছড়ি ও রাঙামাটি জেলার যানবাহন সমিতি, মালিক সমিতি, জীব সমিতি, পরিবহন সমিতি, অটোরিক্সা, সিএনজি, মাহন্দ্রে সমিতি ও সকল নৌযান মালিক-সমিতিসহ সর্বস্তরের জনগণ এবং প্রশাসনের সংশ্লিষ্ট সকলকে সহযোগিতা করার জন্য অনুরোধ জানানো হয়েছে। এছাড়া অবরোধ পালনকালে পরীক্ষার্থী বহনকারী গাড়ি, এম্বোলেন্স-রোগী বহনকারী গাড়ি, মিডিয়া, সংবাদকর্মীর গাড়ি, ফায়ার সার্ভিস ও জরুরি বিদ্যুৎ সরবরাহের গাড়ি আওতামুক্ত থাকবে বলে জানান তিনি।

উল্লেখ্য, গত রবিবার রাঙামাটির কুদুকছড়ি বাজারের ইউপিডিএফের মূল গ্রুপ ও বিদ্রোহী গ্রুপের (বর্মার গ্রুপ) মধ্যে বন্দুকযুদ্ধের ঘটনা ঘটে। এ সময় গণতান্ত্রিক যুব ফোরামের নেতা ধর্ম সিং চাকমা গুলিবিদ্ধ হলেও হিল উইমেন্স ফেডারেশনের সাধারণ সম্পাদক মন্টি চাকমা ও কেন্দ্রীয় সদস্য দয়াসোনা চাকমাকে অস্ত্রের মুখে অপহরণ করে আবাসিকের বৌদ্ধ মন্দিরের পাশ দিয়ে খাগড়াছড়ি-রাঙামাটি সড়কের পর্ব পাশের জঙ্গলে নিয়ে যায় প্রতিপক্ষ গ্রুপের সদস্যরা। এসময় উভয় পক্ষের মধ্যে টানটান উত্তেজনা দেখা দিলেও উদ্ধার করতে পারেনি তাদের নেত্রীদের। পরে ইউনাইটেড পিপলস ডেমোক্রেটিক ফ্রন্ট (ইউপিডিএফ) রাঙামাটি জেলা ইউনিটের সংগঠক সচল চাকমা স্বাক্ষরিত্ব গণমাধ্যমকে দেওয়া এক বিবৃতিতে সংগঠনটির রাঙামাটি জেলা ইউনিটের সংগঠক সচল চাকমা এ অপহরণ ঘটনার জন্য তপন জ্যোতি চাকমা ওরফে বর্মার নেতৃত্বাধীন ইউপিডিএফের বিদ্রোহী গ্রুপকে দায়ী করে।