বরিশালে আ,লীগ নেতার হামলার শিকার বাস মালিক গ্রুপের সম্পাদক।

বরিশালে আ,লীগ নেতার হামলার শিকার বাস মালিক গ্রুপের সম্পাদক।

85
SHARE

নিউজ ডেস্ক : বরিশালে কাউন্সিলর ও আওয়ামী লীগ নেতার হামলায় জেলা বাস মালিক গ্রুপের সাধারণ সম্পাদক ও তার ছেলেসহ দুই মেয়ের উপর হামলার খবর পাওয়া গেছে। তবে এই ঘটনায় উভয় পক্ষই পাল্টা পাল্টি অভিযোগ করেছে বলে জানা গেছে। গতকাল সোমবার বিকেলে নগরীর বিএম কলেজ রোড এলাকায় এই ঘটনা ঘটলে পুলিশ গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনে। স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, দুপুর ২টার দিকে কুকুর পালন করা নিয়ে নগরীর ১৯নং ওয়ার্ড কাউন্সিলরের ভাই আওয়ামী লীগ নেতা গাজী মইনুল হোসেন অরুনের সাথে বরিশাল জেলা বাস মালিক গ্রুপের সাধারণ সম্পাদক গোলাম মাসরেক বাবলুর ছেলে গোলাম মোসাদ্দেক অহিন ও গাড়ির ড্রাইভার জুয়েলের সাথে বাকবিতন্ডা হয়। একপর্যায়ে তারা হাতাহাতিতে লিপ্ত হয়। কিছুক্ষণ পরে বিষয়টি টের পেয়ে ১৯নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর ও মহানগর আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক গাজী নইমুল হোসেন লিটু তার দলবল নিয়ে জেলা বাস মালিক গ্রুপের সাধারণ সম্পাদক গোলাম মাসরেক বাবলুর বাসার সামনে গিয়ে বাবলু ও তার ছেলে গোলাম মোসাদ্দেক অহিনকে বেধড়ক মারধর শুরু করে।একপর্যায়ে বাড়ির উপর থেকে বাবলুর মেয়ে ডা. তারাননুম মাসরেক অর্পা ও ডা. তাবাসসুম মাসরেক অর্নাকেও মারধর করে বলে স্থানীয়রা জানান। একপর্যায়ে থানা পুলিশ এবং জেলা বাস মালিক গ্রুপের সভাপতি ও মহানগর শ্রমিক লীগের সভাপতি আফতাব আহম্মেদ ঘটনাস্থলে এসে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনে। তবে এই ঘটনা পুরোপুরি অস্বীকার করে ১৯নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর ও মহানগর আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক গাজী নইমুল হোসেন লিটু বলেন, ‘আমার ভাইকে বেধড়ক মারধর করা হয়েছে। সে এখন হাসপাতালে ভর্তি রয়েছেন। আপনারা যে হামলার কথা বলছেন সেটা সঠিক নয়। উল্টো আমাদের উপর হামলা করা হয়েছে। এই ঘটনায় আমি প্রথম থানায় অভিযোগ দিয়েছি।’ এই বিষয়ে জেলা বাস মালিক গ্রুপের সাধারণ সম্পাদক ও হামলার শিকার দাবীদার গোলাম মাসরেক বাবলু বলেন, ‘সন্ত্রাসীদের মত আমার পরিবারের উপর হামলা করা হয়েছে। এতে আমিসহ আমার পরিবারের সকলেই আহত হয়েছি। থানায় অভিযোগ দেয়া হয়েছে।’ বিষয়টি নিশ্চিত করে সোমবার রাত সাড়ে ৭টায় বরিশাল কোতয়ালী মডেল থানা পুলিশের উপ পরিদর্শক নজরুল ইসলাম জানান, আমরা বিষয়টি তদন্ত করছি। আর যথাযথ ভাবে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।