সামনেই যখন ‘ভ্যালেনটাইনস ডে’ লিস্টে রাখতে পারেন পাওয়ার ব্যাংক।

সামনেই যখন ‘ভ্যালেনটাইনস ডে’ লিস্টে রাখতে পারেন পাওয়ার ব্যাংক।

50
SHARE
 নিজস্ব প্রতিনিধি : হাবিবুর রহমান ( সুজন): উৎসবের এই মৌসুমে মনের মানুষটিকে বিশেষ একটি উপহার দিয়ে তার সঙ্গে ‘স্পেশাল’ সময় কাটাতে কে না চায়। আর সামনেই যখন ‘ভ্যালেনটাইনস ডে’ তখন ভাবনা চিন্তাটা এখন থেকে শুরু করে নেওয়াই ভালো। উপহার বিনিময় প্রতি বছরেই করে আসছেন। এবার কি গতানুগতিক চকলেট, জামাকাপড় উপহার দেওয়ার থেকে আলাদা কিছু করার কথা ভাবছেন? রোজকার মতো স্ট্রেসফুল জীবনে স্পার্ক আনতে গিফট থেকে ভালো আর কি আছে। কিন্তু ঠিক কী দিলে প্রিয় মানুষের মন জয় করা যায়? তাহলে জেনে নিন ভ্যালেনটাইনস ডে’র গিফ্ট লিস্ট!

ঘরকন্যার জিনিস : আপনার প্রেমিকা যদি ঘর সাজাতে ভালোবাসে তাহলে পোড়ামাটির বা বাঁশের আসবাবপত্রের থেকে ভালো উপহার আর কি হতে পারে। কিংবা কিনতে পারেন সুন্দর ওয়াল হ্যাঙ্গিং। ইচ্ছে করলে কিনতে পারেন ডিজাইনার দেওয়াল ঘড়িও। আজকাল নানা রঙের দেওয়াল ঘড়ি বেশ ইন থিং। নিজেদের সবচেয়ে প্রিয় ফোটোগ্রাফ, বন্দি করুন ডিজাইনার ফোটোফ্রেমে। ভালোবাসা দিবসেই উপহার দিন প্রিয় মানুষকে।

একগুচ্ছ লাল গোলাপ : ভালোবাসা আর যা কিছুই দাও না কেন উপহারের তালিকায় লাল গোলাপ কিন্তু থাকতেই হবে। নইলে হাজারটা উপহারের পরও মনে হবে, কী যেন একটা নেই, খুব গুরুত্বপূর্ণ জিনিসটাই দেওয়া হয়নি। তাই দিবসের শুরুতেই প্রিয়জনের হাতে তুলে দাও একগুচ্ছ লাল গোলাপ। সম্ভব হলে রাতেই দিও। তাতে ভালোবাসার পরিমাণটা কিন্তু বেশিই বোঝাবে!

চিঠি : ভালোবাসা দিবসে উপহার হিসেবে তাকে লিখতে পারো সুন্দর একটি চিঠি। আজকাল সাধারণত কেউ চিঠি লেখে না। সবাই ই-মেইল/এসএমএস/ফেসবুকে ভালোবাসার মানুষকে উইশ করে ফেলে। সুতরাং তুমি চিঠি লিখতে পারো। ছোট্ট একটি কাগজে মনের কথাগুলো লিখে নীল খামে পুরে পাঠিয়ে দাও মনের মানুষটির কাছে। চিঠিটা নিজের হাতে না দিয়ে ডাকযোগে বা অন্যের মাধ্যমে পাঠালে ঘটনাটি আরও বেশি জমবে।

পুতুল : বয়সে মেয়েরা যতই বড় হোক, মনের গহিনে সব সময় সেই বাচ্চা মেয়েটি থেকেই যায়। তাই তো পুতুল তাদের সব সময়ের প্রিয় বস্তু। ভালোবাসা দিবসে তাকে খুশি করতে দিতে পারো কিউট একটা টেডি বিয়ার। তবে বড়সড় একটা পুতুল দিলেও কিন্তু মন্দ হয় না।

প্রিন্টেড গিফট : আজকাল অনেক দোকানেই টি-শার্ট, কফি মগ বা শো-পিসে পছন্দের ছবি ছাপানো যায়। তাহলে আর দেরি কেন? আজই ছাপিয়ে নাও নিজেদের সুন্দর একটা কাপল বা সিঙ্গেল ছবি আর গিফট করো ভালোবাসা দিবসে।

গ্যাজেটস : এখন নারী পুরুষ নির্বিশেষে সবাই গ্যাজেট প্রেমী। যদি আপনার মনের মানুষটি দীর্ঘ সময়ের জন্য নজর রেখেছে কোন একটি গ্যাজেট, তাহলে আর দেরি না করে তাড়াতাড়ি কিনে ফেলুন সেটি। এছাড়া ঘড়ির সেট, ট্যাব বা ফোন ও দিতে পারেন। লিস্টে রাখতে পারেন পাওয়ার ব্যাংক, ডিজিটাল ডায়েরিও।

বইমেলা : চলছে প্রাণের বইমেলা। ভালোবাসা দিবসে প্রিয়জনের হাত ধরে ছুট দিতে পারো বইমেলায়। কিনে দিতে পারো প্রেমের কবিতার বই। বইয়ের প্রথম পাতায় ভালোবাসা জানিয়ে লিখে দাও দুই লাইন স্বরচিত কবিতা।

আর দেরি না করে আজই আপনার মনের মানুষটির পছন্দ মতো উপহারটি অর্ডার দিয়ে দিন। শুধু মনে রাখবেন উপহারের সঙ্গে যুক্ত যেন মিশে যায় ভালোবাসাও। কারণ ভালোবাসা জড়ানো সব উপহারই সবচেয়ে দামী।