শ্রীলঙ্কাকে বিশাল ব্যবধানে হারিয়ে ফাইনালে বাংলাদেশী টাইগাররা।

শ্রীলঙ্কাকে বিশাল ব্যবধানে হারিয়ে ফাইনালে বাংলাদেশী টাইগাররা।

94
SHARE

কিউ২৪ নিউজ ডেস্ক: শ্রীলঙ্কান চন্দিকা হাতুরুসিংহে টাইগারদের ছেড়ে লঙ্কান দলের দায়িত্ব নিয়েছে দুইমাস হল। হাতুরুর বিদায়টা সুখকর ছিলনা বাংলাদেশ দলে ও সমর্থকদের জন্য। লঙ্কানদলের নিয়ে প্রথম অ্যাসাইনমেন্টেই হাতুরু এসেছে বাংলাদেশে। তাইতো সাবেক কোচেকে ‘জবাব’ দেয়ার বড়তি অনুপ্রেরণা নিয়েই শুক্রবার মাঠে নেমিছিল মাশরাফিবাহিনী। টিম বাংলাদেশের অলরাউন্ড পারফরমেন্সে হাতুরুর শিষ্যরা ১৬৩ রানের বিশাল ব্যবধানে পরাজিত হয়েছে। মাত্র ৩২.২ ওভারে ১৫৭ রানে অলআউট হয়ে যায় শ্রীলঙ্কা। ওয়ানডেতে বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় জয় এটিই। আগের রেকর্ড ছিল ২০১২ সালে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে ১৬০ রানের জয়। প্রথম দুই ম্যাচেই বোনাস পয়েন্টসহ জয়ে বাংলাদেশ নিশ্চিত করে ফেলল টুর্নামেন্টের ফাইনালও।

এর আগে দুপুরে শের ই বাংলা ক্রিকেট স্টেডিয়ামে টসে জিতে ব্যটিংয়ে নেমে তামিম, সাকিব ও মুশফিকের ফিফটি ও সাব্বিরের ক্যামিওতে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে ৩২০ রানের বিশাল সংগ্রহ দাঁড় করায় বাংলাদেশ। বাংলাদেশের হয়ে তামিম ১০২ বলে ৮৪, সাকিব ৬৩ বলে ৬৭, মুশফিক ৫২ বলে ৬২ , মাহমুদুল্লাহ ২৩ বলে ২৪ ও সাব্বির ১২ বলে ২৪ রান করেন। লঙ্কানদের হয়ে পেরেরা ৩টি ও প্রদীপ ২টি করে উইকেট লাভ করেন।

জয়ের জন্য ৩২১ রানের বিশাল লক্ষ্য নিয়ে খেলতে নেমে তৃতীয় ওভারের প্রথম বলেই আউট লঙ্কান উদ্বোধনী ব্যাটসম্যান কুশল পেরেরা। স্পিনার নাসির হোসেনকে তুলে মারতে গিয়ে বোল্ড হয়ে ফিরে যান কুশল। এরপর ক্রিজে আসেন কুশল মেন্ডিস। ১৯ রান করে মেন্ডিস আউট হন মাশরাফির বলে। এর আগে ১০ ওভারেও থারাঙ্গাকে ফিরিয়ে দেন মাশারফি। ১৯ তম ওভারে মুস্তাফিজ ডিকবেলাকে বোল্ড করলে চাপে পড়ে যায় শ্রীলঙ্কা। এরপর ধারবাহিক বিরতিতে আউট হন চান্দিমাল, গুনারত্নে, হাসারাঙ্গা, পেরেরা ও লাকমাল। টাইগার বোলারদের নিয়ন্ত্রিত বোলিংয়ে নাভিশ্বাস উঠে যায় লঙ্কান ব্যাটসম্যানদের।

বাংলাদেশের হয়ে সাকিব ৩ টি ও মাশরাফি ও রুবেল ২টি করে উইকেট লাভ করেন।