উন্মুক্তভাবে বিক্রয় হচ্ছে যৌন উত্তেজক সিরাপ,কু-প্রভাবে ধংষের পথে যুবসমাজ।

উন্মুক্তভাবে বিক্রয় হচ্ছে যৌন উত্তেজক সিরাপ,কু-প্রভাবে ধংষের পথে যুবসমাজ।

55
SHARE

নিজস্ব প্রতিনিধি : মাজারুল ইসলাম:                      উন্মুক্ত ভাবে বিক্রি হচ্ছে যৌন উত্তেজক বিভিন্ন ধরণের সিরাপ। বিশেষ করে কিছুসংখ্যক তরুন-যুবকসহ বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার নারী-পুরুষ ঝুকছে এসব সিরাপের দিকে। আর এ সব সিরাপ পানের কু-প্রভাবে যৌনাচার, ব্যভিচার, ধর্ষন, ইভটিজিং আশংকা জনক হারে বৃদ্ধি পেয়েছে। এমনকি স্বামী-স্ত্রী ও অভিভাবক-সন্তানের মধ্যে অস্থার সংকট ও অবিশ্বাস সৃষ্টিসহ সামাজিক বন্ধন শিথিল হয়ে যাচ্ছে বলে সমাজকর্মীরা আশংকা প্রকাশ করেছে।
সম্প্রতিক কালে দেশীয় ও পার্শবর্তী দেশ থেকে আশা বিভিন্ন অসাধু কম্পানীর সরবারহকৃত এসব যৌন উত্তেজক সিরাপে বাজার সয়লাব হয়ে গেছে। স্থানীয় প্রশাসন বা ভ্রাম্যমান আদালতের পক্ষ থেকে কোন প্রকার নজরদারী করা হচ্ছেনা। প্রশাসনের নীরবতার সুযোগে যৌন উত্তেজক এসব পানিয় পানের ফলে যৌন অপরাধ প্রবনতা বৃদ্ধির পাশাপাশি জনস্বাস্থ্যের মারাত্মক বিপর্যয় ঘটতে পারে বলে স্থানীয় চিকিৎসকরা আশংকা প্রকাশ করছেন । উপজেলার শহর-হাট-বাজারে প্রকাশ্যে এ সব যৌন উত্তেজক পানিয় বিক্রি হলেও প্রশাসনের পক্ষ থেকে তদারকীর লক্ষে কার্যকর কোন পদক্ষেপ গ্রহন করতে দেখা যায় না। শহরের হাট বাজার সহ অধিকাংশ দোকানেই প্রকাশ্যে বিক্রি হচ্ছে বিভিন্ন কোম্পানীর প্রস্তুতকৃত এসব সিরাপ। আবার প্রচন্ড গরমের কারনে অনেকে না জেনেই এসব সিরাপ পানের কু-প্রভাবের শিকার হয়। সন্ধ্যা নামার পরেই এসব সিরাপ পান করার জন্য দোকানের সামনে ঘুরে বেড়ায় যুবক থেকে মধ্য বয়সী বিভিন্ন পর্যায়ের সেবনকারীরা।
বিএসটিআই’র অনুমোদনহীন এসব যৌন উত্তেজক পানিয় পানের তোড়জোর লক্ষ করা যায়। ব্যবসায়ীদের সাথে কথা বলে জানা যায়, বিভিন্ন কোম্পানীর প্রস্তুতকৃত ড্রিংস এর মধ্য উল্লেখ যোগ্য হচ্ছে রেইচ-১, রেইচ-২, ফাস্ট, চায়না বড়, জিনজেন,ফিলিংস, আইটেম, নাইট পিটিং, চায়না ছোট, ডাবল হর্স, হর্স পাওয়ার, ম্যান পাওয়ার, পাওয়ার ম্যান, তৃপ্তি পাওয়ার, মাসরুম, পাগলু ২, নাইট পাওয়ার, জিনসিন সিরাপ উল্লেখযোগ্য।
ব্যবসায়ীরা আরো জানান, অন্যান্য ড্রিংকস বিক্রি করে লাভ বোতল প্রতি ২/৪ টাকা। আর এ সকল যৌন উত্তেজক ড্রিংস বিক্রি করে বোতল প্রতি লাভ ২০ থেকে ৫০ টাকা আর বিক্রিও হয় অন্যান্য গুলোর চেয়ে অনেক বেশী। নাম প্রকাশ না করার শর্তে যৌন উত্তেজক ড্রিংকস সেবনকারী কয়েক জনে বলেন, যৌন উত্তেজক ড্রিংকস সেবনের পূর্বে যৌন ক্ষমতা স্বাভাবিক থাকলেও অধিক শক্তি পাওয়ার আশায় এ সকল পানিয় সেবন করা হয়। এখন সেবনকারীদের এমন অবস্থা হয়েছে যে সেবন না করলে যৌন উত্তেজনা সৃষ্টি হয়না তাই বাধ্য হয়ে নিয়মিত এ ড্রিংকস সেবন করতে হচ্ছে